স্বাধীন কাশ্মীরের জন্য আন্দোলনে নামুন, বিজয় হবেই: রাহুল গান্ধী

জম্মু–‌কাশ্মীর নিয়ে দলের অন্দরের মতানৈক্যে সিঁদুরে মেঘ দেখছেন কংগ্রেস হাইকমান্ড। নতুন সভাপতি খুঁজতে শনিবার ওয়ার্কিং কমিটি বসবে, আগে থেকেই ঠিক ছিল। তার আগে তড়িঘড়ি মঙ্গলবার রাতে ডাকা হয়েছিল ওয়ার্কিং কমিটি‌র আর একটি বৈঠক।

আলোচ্য ছিল কাশ্মীর। সেখানেও পার্টি লাইনের বাইরে মত প্রকাশ করেছেন একাধিক নেতা। এরপর জরুরি বৈঠকে ডাকা হয়েছে দলের সাধারণ সম্পাদক, প্রদেশ সভাপতি এবং পরিষদীয় নেতাদের।

শুক্রবার হবে এই বৈঠক।সংসদে সরকারের প্রস্তাব ও বিল পাশ হওয়ার আগে ও পরে দলের হেভিওয়েট নেতা জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া ছাড়াও জনার্দন দ্বিবেদী, ভূবনেশ্বর কালিতা, দীপেন্দর হুডা,

জয়বীর শেরগিল ‌ও অদিতি সিংদের মতো নেতারা নরেন্দ্র মোদি সরকারের সিদ্ধান্তে সমর্থন জানিয়েছেন। ৩৭০ ধারা বিলোপের বিরোধিতা করতে চাননি অভিষেক মনু সিংভিও। তারপরেই তড়িঘড়ি মঙ্গলবার রাতে কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক বসে।

দলের যুব নেতারা সোনিয়া গান্ধী, রাহুল গান্ধীদের সামনেই বলেছেন, ৩৭০ ধারা তুলে দেওয়া সমর্থন করছে গোটা দেশ। প্রবীণ নেতারা সাধারণ মানুষের মনের কথা বুঝতে পারছেন না। তবে এই বক্তব্য ধোপে টেকেনি।

বৈঠকে রাহুল গান্ধী বলেছেন, হতে পারে বেশিরভাগ মানুষ ৩৭০ ধারা তুলে দেওয়ার পক্ষে মত দিচ্ছেন। কিন্তু সবাই সেটা বুঝে সমর্থন করছেন, এমনটা নয়। অনেক মানুষ চাইছেন বলেই –

সরকারের-সিদ্ধান্তে সমর্থন জানানো চলে না। রাহুলের মন্তব্য সমর্থন করেছেন সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। তারপর ৩৭০ ‌বিলোপের বিরুদ্ধে সরব হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দল।

কাশ্মীরে ধোনির চেয়ে বেশি জনপ্রিয় শহীদ আফ্রিদি!

মহেন্দ্রমহেন্দ্র সিং ধোনি ভারতের হয়ে দুইবার (টি-টুয়েন্টি ও ওয়ানডে) বিশ্বকাপ জয়ে নেতৃত্ব দেন। দেশে তার জনপ্রিয়তা যত বেশি কাশ্মীরে ততটাই কম। কাশ্মীরে ধোনির চেয়ে বেশ জনপ্রিয় পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি।

ধোনি কাশ্মীরিদের বিপক্ষেভারতীয় সেনাবাহিনীর সঙ্গে কাজ করছেন। মুসলিম অধ্যুষিতকাশ্মীরের জনগণ তাই ‘বুম বুম আফ্রিদি’ স্লোগানে ধোনিকে বরণ করে নেন। তারাবুঝাতে চেয়েছেন পুলওয়ামার জনগণের কাছে ধোনির চেয়ে আফ্রিদিই তাদের কাছে বেশি ফেভারিট।

গত সোমবার ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করেছে নরেন্দ্র মোদির সরকার। কেড়ে নেয়া হয়েছে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখের বিশেষ মর্যাদা। ফলে ভূস্বর্গে অস্থিতিশীল অবস্থা বিরাজ করছে।

সেই পরিস্থিতে জম্বু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ভারতীয় সেনাবাহিনীর ১০৬ টেরিটরি আর্মি ব্যাটেলিয়নের সঙ্গে আছেন ধোনি। জম্বু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ভারতীয় সেনাবাহিনীর ১০৬ টেরিটরি-

আর্মি ব্যাটেলিয়নের সঙ্গে আছেন ২০১১ সালে সম্মানসূচক লেফটেন্যান্ট কর্নেল উপাধি পাওয়া ভারতীয় সাবেক এ অধিনায়ক। আফ্রিদি কাশ্মীরের ওই বিশেষ সুবিধা বঞ্চিত করার ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

তাদের পাশে থেকেছেন। আর ধোনি ভারতীয় সেনাবাহিনীর হয়ে কাশ্মীরিদের আন্দোলন থামাতে এসেছেন বলেই কাশ্মীরিদের ধারণা। ভারতের স্পোর্টস ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম ক্রিকট্রেকার তাদের প্রতিবেদনে জানায়,

ভারতজুড়ে ধোনির প্রচুর ভক্ত থাকলেও কাশ্মীরে তার তেমন কোনো ভক্ত নেই। যখন ধোনি কাশ্মীরে পৌঁছান তখন তাকে অভ্যর্থনা জানানোর বিপরীতে পাকিস্তানের সাবেক তারকা ক্রিকেটার শহীদ আফ্রিদির নামে স্লোগান দিতে থাকেন।

এ নিয়ে ভিডিও ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগের জনপ্রিয় মাধ্যম ফেসবুক ও টুইটারে ভাইরাল হয়েছে। তবে ভারতীয় ওই সংবাদমাধ্যমের দাবি, ভিডিওটি পুরনো। ২০১৭ সালে একটি স্থানীয় ক্রিকেট টুর্নামেন্টে অতিথি হিসাবে গিয়েছিলেন তিনি।এটি সেই সময়ের ভিডিও বলেই মনে করা হচ্ছে।

সূত্র: দ্য ক্রিকেট

Loading...